ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১১ ফাল্গুন ১৪২৭, ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ১৩ রজব ১৪৪২

রাজনীতি

গোপনে নয়, বিএনপি নেতাদের জনসম্মুখে টিকা নেওয়া উচিত

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৪৩১ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ২৩, ২০২১
গোপনে নয়, বিএনপি নেতাদের জনসম্মুখে টিকা নেওয়া উচিত ছবি: শাকিল আহমেদ

ঢাকা: বিএনপির নেতাদের গোপনে নয়, জনসম্মুখে করোনা ভাইরাসের প্রতিষেধক টিকা না নেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ।

মঙ্গলবার (২৩ ফেব্রুয়ারি) জাতীয় প্রেসক্লাবে ইন্ডিয়ান মিডিয়া করেসপন্ডেন্টস, বাংলাদেশ (ইমক্যাব) আয়োজিত ‘বঙ্গবন্ধু: বাংলাদেশ-ভারত সম্পর্ক’ শীর্ষক সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ আহ্বান জানান তিনি।

আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ বলেন, বিএনপির অনেক নেতা গোপনে করোনার টিকা নিচ্ছেন। জনসম্মুখে তারা যেভাবে কথা বলেন, টিকাটাও সেভাবে জনসম্মুখে নেওয়া উচিত। আমরা তাদের স্বাস্থ্যের বিষয়ে লক্ষ্য রাখবো।

প্রতিবেশী দেশের সঙ্গে বৈরী সম্পর্ক রেখে দেশের উন্নয়ন সম্ভব নয় বলে মন্তব্য করে তথ্যমন্ত্রী বলেন, নির্বাচন এলে বিএনপি ও কিছু দল ভারত বিরোধিতাকে সামনে এনে প্রচারণা চালায়; যাদের সহযোগিতা ছাড়া এ দেশের স্বাধীনতা সম্ভব ছিল না, তাদের বিরোধিতা করে। প্রতিবেশী দেশের সঙ্গে বৈরিতা করে দেশের উন্নয়ন সম্ভব নয়। এ কথা তারা বুঝেও বোঝেন না।

ড. মাহমুদ বলেন, বাংলাদেশ ও ভারত সরকারের মধ্যে এখন দারুণ সম্পর্ক রয়েছে। তবে দুই দেশের মধ্যে আন্তঃসম্পর্ক, ব্যবসা-বণিজ্য আরও বৃদ্ধি করা উচিত। ১৯৬৫ সালে ভারত-পাক যুদ্ধের আগে যেমন সম্পর্ক ছিল তেমন সম্পর্ক ফিরিয়ে আনতে হবে। এতে দেশ ও অর্থনীতির উন্নয়ন হবে।

১৯৭৪ সালে বঙ্গবন্ধুর করা মৈত্রী চুক্তিকে তার দূরদর্শিতা উল্লেখ করে তথ্যমন্ত্রী বলেন, ওই চুক্তির কারণে আমরা ভারতের কাছ থেকে আমাদের ছিটমহলের অধিকার ফিরে পেয়েছি। অথচ এ চুক্তি নিয়ে একটি মহল বিরূপ প্রচারণা চালিয়েছিল।

মুক্তিযুদ্ধের সময়কালে ভারতের অবদানের কথা স্মরণ করে আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বলেন, পাকিস্তানের জেল থেকে বঙ্গবন্ধুকে উদ্ধার করতে ইন্দিরা গান্ধী ৩০টি দেশ সফর করেছিলেন।

সাংবাদিকদের উদ্দেশে তথ্যমন্ত্রী বলেন, এমন কোনো খবর প্রচার করা উচিত না, যাতে দুই দেশের মধ্যে সম্পর্কের অবনতি হয়। মানুষের মধ্যে বিরূপ প্রতিক্রিয়া তৈরি হয়।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন বাংলাদেশে নিযুক্ত ভারতীয় হাইকমিশনার বিক্রম কুমার দোরাইস্বামী। সম্মানিত অতিথি ছিলেন ডেইলি অবজারভার সম্পাদক ইকবাল সোবহান চৌধুরী, জাতীয় প্রেসক্লাবের সভাপতি ফরিদা ইয়াসমিন, বিএফইউজের সাবেক সভাপতি মনজরুল আহসান বুলবুল ও ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি কুদ্দুস আফ্রাদ।

সেমিনারে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন সেক্টর কমান্ডারস ফোরামের মহাসচিব হারুন হাবিব। ইমক্যাবের সভাপতি বাসুদেব ধরের সভাপতিত্বে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক রফিকুল ইসলাম সবুজ। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন ইমক্যাবের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শাহিদুল হাসান খোকন।

বাংলাদেশ সময়: ১৪২৮ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ২৩, ২০২১
ডিএন/এমজেএফ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa