ঢাকা, শুক্রবার, ১৩ ফাল্গুন ১৪২৭, ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ১৪ রজব ১৪৪২

ইসলাম

রংপুরে নির্মিত হচ্ছে আল্লাহর ৯৯ নামের স্তম্ভ

মাহফুজুল ইসলাম বকুল, ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৬৩০ ঘণ্টা, জানুয়ারি ২২, ২০২১
রংপুরে নির্মিত হচ্ছে আল্লাহর ৯৯ নামের স্তম্ভ

রংপুর: মহান আল্লাহ তায়ালার গুণবাচক ৯৯ নাম নিয়ে রংপুরে নির্মিত হচ্ছে দৃষ্টিনন্দন ও সুবিশাল ‘আল্লাহু’ স্তম্ভ । রংপুরের মিঠাপুকুর উপজেলার খোড়াগাছ ইউনিয়নের রূপসি পাঁচমাথার মোড়ে দৃষ্টিনন্দন স্তম্ভ নির্মাণের কাজ প্রায় শেষের দিকে।

স্তম্ভটির কারুকার্য শেষে আনুষ্ঠানিকভাবে এটি উন্মোচন করা হলে ‘আল্লাহু চত্বর’ হিসেবে এটি পরিচিতি পাবে।  
এছাড়া একই এলাকায় পবিত্র আল কুরআনের অবয়বে ‘রেহেল চত্বর’ নির্মাণের কাজও শুরু হয়েছে।

সরেজমিনে দেখা যায়, রংপুরের মিঠাপুকুর উপজেলার খোড়াগাছ ইউনিয়নের রূপসি পাঁচমাথার মোড়ে সুবিশাল একটি স্তম্ভ তৈরির কাজ শেষ হয়েছে। বর্গাকার স্তম্ভটির চার পাশে আল্লাহর গুণবাচক ৯৯ নাম আরবিতে ও বাংলা উচ্চারণসহ ওপর থেকে নিচে লেখা হয়েছে। নিচে রয়েছে বর্গাকার বেদি যা আবার দুই স্তরের গোলাকার বেদি দিয়ে পরিবেষ্টিত।  
কারুকার্য সম্পন্ন না হলেও অবয়ব ফুটে উঠায় দূর-দূরান্ত থেকে লোকজন এটি দেখতে আসছেন, ছবি তুলছেন। ধর্মভীরু মুসলমানদের মুখে শোনা যাচ্ছে প্রশংসা।

জানা যায়, মিঠাপুকুর উপজেলার এক নম্বর খোড়াগাছ ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান মো. আসাদুজ্জামানের প্রচেষ্টায় আল্লাহু স্তম্ভের নির্মাণ কাজ চলছে। তিনি নিজেই এটির ডিজাইন করেছেন। নির্মাণ কাজ অনেকটা শেষ হলেও এখনও কারুকার্যের কিছু কাজ বাকি রয়েছে। তবে ইতোমধ্যেই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের বদৌলতে অনেকেই জেনেছেন। দুই ফুট বাই দুই ফুট বর্গাকার এ স্তম্ভটির উচ্চতা হবে ২৭ ফুট। যার ২২ ফুটে রয়েছে আল্লাহর ৯৯টি নাম এবং ওপরে পাঁচ ফুটে থাকবে ‘আল্লাহু’ লেখা।  

স্থানীয় ব্যবসায়ী ফজু মিয়া বাংলানিউজকে বলেন, প্রতিদিন বিভিন্ন জায়গা থেকে লোকজন স্তম্ভটি দেখতে আসছেন। এখনও তো কমপ্লিট হয়নি। হইলে আরও সুন্দর লাগবে।  

স্তম্ভটি নির্মাণের উদ্যোক্তা ইউপি চেয়ারম্যান আসাদুজ্জামান বাংলানিউজকে বলেন, গত বছরে টিআর প্রকল্পের এক লাখ ৬০ হাজার টাকা ব্যয়ে স্থানীয় বুড়াজুম্মা মোড়ে ‘আল্লাহু স্তম্ভ’ নির্মাণের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। কিন্তু বুড়াজুম্মা মোড়টি সংকুচিত ও ছোট হওয়ায় সেখানে দৃষ্টিনন্দন হবে না ভেবে স্তম্ভটি রূপসি পাঁচমাথার মোড়ে নির্মাণের উদ্যোগ নিই। এজন্য পাঁচমাথার মোড়ের অবৈধ দখল উচ্ছেদ করে স্তম্ভটির নির্মাণ কাজ শুরু করি। বর্তমানে সমন্বিতভাবে অর্থায়ন করে স্তম্ভটির নির্মাণ কাজ চলছে।  

গত বছরের আগস্টে স্তম্ভটির নির্মাণ কাজ শুরু হয়েছে জানিয়ে ইউপি চেয়ারম্যান আসাদুজ্জামান আরও বলেন, ধর্মীয় ভাবাবেগ থেকে এটির নির্মাণ কাজ শুরু করা হয়। নান্দনিক লাইটিং সিস্টেমের সঙ্গে অটোমেটিক সাউন্ড সিস্টেমের মাধ্যমে ২৪ ঘণ্টায় এখানে মহান আল্লাহ তায়ালার ৯৯টি নাম উচ্চারিত হবে। বিদ্যুৎ সংযোগের পাশাপাশি স্তম্ভটিতে আইপিএস সংযোগ দেওয়া হবে।

নির্মাণ কাজ শেষ হলে আনুষ্ঠানিক স্তম্ভটির উদ্বোধন করার কথা রয়েছে স্থানীয় সংসদ সদস্য (এমপি) আশিকুর রহমানের।

বাংলাদেশ সময়: ১৬৩০ ঘণ্টা, জানুয়ারি ২২, ২০২১
আরআইএস

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa