ঢাকা, শুক্রবার, ১৩ ফাল্গুন ১৪২৭, ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ১৪ রজব ১৪৪২

নির্বাচন ও ইসি

মৌলভীবাজার পৌর নির্বাচন: বিএনপিতে শঙ্কা, উৎফুল্ল আ.লীগ

ডিভিশনাল সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২১৩৫ ঘণ্টা, জানুয়ারি ২৩, ২০২১
মৌলভীবাজার পৌর নির্বাচন: বিএনপিতে শঙ্কা, উৎফুল্ল আ.লীগ আওয়ামী লীগের নির্বাচনী প্রচারণা, ছবি: বাংলানিউজ

মৌলভীবাজার: তৃতীয় ধাপে আগামী ৩০ জানুয়ারি মৌলভীবাজার পৌরসভার নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। এবার আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা প্রতীকের প্রার্থী ফজলুর রহমানের বিপরীতে নির্বাচনে অংশ নিয়েছেন বিএনপি মনোনীত ধানের শীষ প্রতীকের প্রার্থী মো. অলিউর রহমান।

গত সোমবার (১১ জানুয়ারি) প্রতীক বরাদ্দের পর থেকে প্রধান দু’দলের প্রার্থী সমান তালে নির্বাচনী প্রচারণা শুরু করেছেন।  

মেয়র প্রার্থীদের পাশাপাশি নয়টি ওয়ার্ডের আটটি ওয়ার্ডের কাউন্সিলর প্রার্থীরাও গণসংযোগে ব্যস্ত সময় পার করছেন। প্রতিটি ওয়ার্ডে জমে উঠেছে ভোটের পূর্ণ আমেজ। প্রচারে প্রার্থীদের পক্ষে গণসংযোগ আর মিছিলে অংশ নিচ্ছেন ভোটার আর তাদের কর্মী-সমর্থকরাও। এখন পর্যন্ত মৌলভীবাজার পৌরসভা নির্বাচনে আচরণবিধি লঙ্ঘন কিংবা কোথাও কোনো অপ্রীতিকর ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি। নির্বাচনের সার্বিক পরিবেশও বলা যায় অনেকটা সুষ্ঠু রয়েছে।  

সরেজমিনে ঘুরে জানা যায়, আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী ফজলুর রহমান নির্বাচনে অংশ নিয়ে প্রথম থেকেই দু’ধরনের কৌশল অবলম্বন করে নির্বাচনী প্রচার শুরু করেছেন। প্রথমত যুবলীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ, ছাত্রলীগ, কৃষকলীগসহ দলের সবগুলো সহযোগী সংগঠনগুলোকে নিয়ে ধারাবাহিকভাবে বর্ধিত কর্মী সভা করে আসছেন। এসব বর্ধিত সভার মাধ্যমে নেতাকর্মীরাও যেমন চাঙ্গা ও ঐক্যবদ্ধ হচ্ছেন তেমনি দলও হচ্ছে সুসংঘঠিত। বর্ধিত সভার পাশাপাশি পৌরসভার নয়টি ওয়ার্ডেই দলীয় সমন্বয়ের মাধ্যমে সাধারণ ভোটারদের সম্পৃক্ত করে ধারাবাহিক উঠান বৈঠক করে আসছেন তিনি।

বর্ধিত সভার পাশাপাশি চলা প্রতিটি উঠান বৈঠকেই মেয়র প্রার্থী ফজলুর রহমান তার সময়ে নেওয়া নানা উন্নয়ন ও পৌরসভার চলমান উন্নয়নে বড় বড় প্রকল্পগুলো বাস্তবায়নের লক্ষ্যে আবারও নৌকা প্রতীকে ভোট দিয়ে নির্বাচিত করার আহ্বান জানিয়ে আসছেন ভোটারদের কাছে। প্রতিটি বৈঠকেই দলের শীর্ষ নেতাদের পাশাপাশি সহযোগী সংগঠনের নেতাদের সরব উপস্থিতি জানান দিচ্ছে নির্বাচনে দলীয় প্রার্থীকে জয়ী করতে আওয়ামী লীগ একাট্টা, ঐক্যবদ্ধ ও উৎফুল্ল। আর নির্বাচনের সময় যত ঘনিয়ে আসছে পৌর এলাকার প্রতিটি ওয়ার্ডের পাড়ায় পাড়ায় নৌকা প্রতীকের দলীয় প্রচারণার মাত্রাও তত বেড়েই চলেছে। ভোটারদের দ্বারে দ্বারে গিয়ে দলীয় প্রতীক সম্বলিত লিফলেট হাতে দিয়ে ভোট চাচ্ছেন তিনি।

ফজলুর রহমান বলেন, নির্বাচনের প্রচার-প্রচারণায় যেভাবে জনসাধারণ স্বতঃস্ফূর্তভাবে অংশগ্রহণ করছেন, তাতে আমি শতভাগ নিশ্চিত আগামী ৩০ জানুয়ারির নির্বাচনে উন্নয়ন ও গণতন্ত্রের প্রতীক নৌকা বিজয়ী হবে।

এদিকে মৌলভীবাজার পৌরসভা নির্বাচনে দীর্ঘ ১৪ বছর ক্ষমতার বাইরে থাকা রাজপথের দল বিএনপি নানা শঙ্কা আর উৎকণ্ঠাকে সামনে রেখে অংশ নিয়েছে এ নির্বাচনে। প্রার্থী হিসেবে তুমূল জনপ্রিয় না হলেও এবারও ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে নির্বাচনে অংশ নিয়েছেন বিগত নির্বাচনে অংশ নেওয়া ধানের শীষের প্রার্থী অলিউর রহমান। গত ১১ জানুয়ারি প্রতীক বরাদ্দের দিন সন্ধ্যায় শহরের পুরাতন হাসপাতাল সড়কে দলের প্রার্থীর প্রধান নির্বাচনী কার্যালয় উদ্বোধনের মধ্য দিয়ে শুরু হয় দলটির নির্বাচনী আনুষ্ঠানিকতা। পর দিন ১২ জানুয়ারি সকালের দিকে প্রধান নির্বাচনী কার্যালয় থেকে পশ্চিমবাজার পর্যন্ত চলে দলীয় প্রার্থীর পক্ষে ভোট চেয়ে নির্বাচনী প্রচারণা। এটিই বিএনপি প্রার্থীর প্রথম নির্বাচনী প্রচারণা। এ প্রচারণা চলে জেলা বিএনপির সভাপতি ও সাবেক সংসদ সদস্য এম নাসের রহমানের নেতৃত্বে।

সব মিলিয়ে দেখা গেছে, আওয়ামী লীগ প্রার্থীর প্রচারণার তুলনায় অনেকটা পিছিয়ে বিএনপি প্রার্থীর নির্বাচনী প্রচারণার কৌশলগত অবস্থান। তবে আওয়ামী লীগ প্রার্থীর মতো বিএনপি প্রার্থীর পক্ষে এখন পর্যন্ত বড় ধরনের কোনো দলীয় বর্ধিত সভা কিংবা ওয়ার্ডে ওয়ার্ডে উঠান বৈঠক করতে দেখা যায়নি। নির্বাচনকে সামনে রেখে বিক্ষিপ্তভাবে কয়েকটি সমন্বয় সভা হয়েছে দলের শীর্ষ নেতাদের বাসায় কিংবা ব্যক্তিগত অফিসে। আর প্রতিদিনই বিএনপি প্রার্থীর পক্ষে শহরের ওয়ার্ডে ওয়ার্ডে চলছে নির্বাচনী প্রচারণা। দলের নেতাকর্মীরাও অংশ নিচ্ছেন এসব প্রচারণা ও গণসংযোগে।  

তবে আসন্ন পৌরসভা নির্বাচনকে সামনে রেখে ভোটের সুষ্ঠু পরিবেশ নিয়ে বিএনপি শিবিরে তৈরি হয়েছে নানা শঙ্কাও। জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ভিপি মিজানুর রহমান বলেন, বর্ধিত সভা না হলেও পৃথকভাবে দলীয় প্রার্থীর পক্ষে বৈঠক হচ্ছে। প্রতিটি ওয়ার্ডে দলীয় নেতৃত্বের মাধ্যমে কো-অর্ডিনেটর রয়েছে। তাদের মাধ্যমে সমন্বয় সভা হচ্ছে প্রত্যেক ওয়ার্ডে। মৌলভীবাজার পৌরসভায় ভোটাররা ধানের শীষে ভোট দিতে চান জানিয়ে তিনি বলেন, নির্বাচন সুষ্ঠু হওয়া নিয়ে আমাদের মতো ভোটাররাও শঙ্কিত। তারা চাচ্ছেন ভোটের পরিবেশ। জাতীয় ও স্থানীয় নির্বাচনগুলোতে ভোটের পরিবেশ যেভাবে নষ্ট করা হয়েছে তাতে ভোটাররা বেশ শঙ্কিত। তারা ভোট দিতে ভয় পাচ্ছেন। পাশাপাশি সেই আশঙ্কা ভোটারদের মধ্যে রয়ে গেছে। সুতরাং কতটুকু ভোটাররা উপস্থিত হবেন সেটা নিয়ে আমাদের সন্দেহ রয়েছে।  

আগামী ৩০ জানুয়ারি অনুষ্ঠেয় মৌলভীবাজার পৌরসভা নির্বাচনে মোট ভোটার রয়েছেন ৪৩ হাজার ৪৪৬ জন। এরমধ্যে পুরুষ ভোটার রয়েছেন ২২ হাজার ৭৫০ জন আর নারী ভোটার ২০ হাজার ৬৯৬ জন।  

বাংলাদেশ সময়: ২১৩১ ঘণ্টা, জানুয়ারি ২৩, ২০২১
বিবিবি/আরবি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa